গরুর ভুড়ি রান্নার সহজ উপায়

গরুর ভুড়ি রান্নার সহজ উপায়

অনেকের পছন্দের শীর্ষে থাকে গরু, ছাগলের ভুড়ি বা বট। তবে ঝামেলার কারণে এবং রান্না না জানার কারণে অনেকেই খেতে পারেন না এই সুস্বাদু রেসিপিটি। তাদের জন্যই সহজ উপায়ে মজাদার এই খাবারটি রান্নার রেসিপি থাকছে আজ।

প্রথম ধাপ

ভুড়ি পরিস্কারের পর সিদ্ধ করে আবারও ভালো করে পরিস্কার করে নিতে হবে। এরপর ছোট ছোট টুকরা করে কেটে নিতে হবে। প্রথমে ভুড়ির ময়লা পরিস্কারের পর চুনের পানিতে চুবিয়ে রাখতে হয়, এতে যদি কোন জীবানু থাকে তা মরে যায়, তারপর ভালো করে সিদ্ধ করে নিতে হবে।
২য় ধাপ

ভুড়ি রান্না (পেঁয়াজ ছাড়া)
৩য় ধাপ

পেঁয়াজ দিয়ে ভাঁজা বা বাগার।
পরিমান ও উপকরণ

– ১ কেজি ভুড়ি (পরিস্কারের পর)।
– গরম মসলা (এলাচি ৪/৫টা, দারুচিনি, ৩/৪ পিস)
– কাঁচা মরিচ কয়েকটা
– লাল মরিচ গুড়া, ১ চা চামচ
– হলুদ গুড়া, এক চা চামচ
– আদা বাটা, এক টেবিল চামচ
– রসুন বাটা, এক টেবিল চামচ
– ধনিয়া গুড়া, হাফ চা চামচ
– জিরা গুড়া, হাফ চা চামচ
– তেল, ৮/১০ চা চামচ বা কম বেশি
– লবন, পরিমান মত
– পানি, পরিমান মত
বাগারের জন্য/ভাজার জন্য
– পেঁয়াজ কুঁচি, এক কাপ (একটু বেশী হলেই ভালো)
– কয়েকটা কাঁচা মরিচ, আস্ত
– তেল, ৮/১০ চা চামচ (কম বেশী, বুঝে, অনুমান আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন)
আপনি চাই আরও যুক্ত করতে পারেন
– টমেটো কুঁচি পরিমাণ মত
– ধনিয়া পাতার কুঁচি, দুই চা চামচ বা কম বেশি
প্রস্তুত প্রনালী
– ভুড়ি পরিস্কারের পর সিদ্ধ করে আবারও ভালো করে পরিস্কার করে নিতে হবে এবং এর পর ছোট ছোট টুকরা করে নিতে হবে। তবে প্রথমে ভুড়ির ময়লা পরিস্কারের পর চুনের পানিতে চুবিয়ে রাখতে হয়, এতে যদি কোন জীবানু থাকে তা মরে যায়, তারপর ভালো করে সিদ্ধ করে নিতে হবে।
– মিক্স পদ্ধতি অথবা সাধারণ মাংস রান্নার মত আগে ঝোল বা কষিয়েও করতে পারেন। যেভাবে খুশি।
– সব মশলা, সামান্য লবন, সামান্য তেল দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করে রাখা ভুড়িগুলো একটা হাড়িতে নিন।
– দুই/তিন কাপ পানি দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। (সিদ্ধ না হলে পরেও পানি দিতে পারবেন) টমেটো কুঁচিও এই সময়ে দিয়ে দিতে পারেন।
– এবার মধ্যম আঁচে ঢাকনা দিয়ে জ্বাল দিতে থাকুন।
– সময় লাগবে অনেক। (অনুমানিক ঘন্টা দুয়েক জ্বাল চলবে)। শক্ত থাকলে আরও পানি দিতে পারেন।
– এবার অন্য একটা কড়াইতে তেলে পেঁয়াজ কুঁচি, মরিচ ভাঁজুন।
– পেঁয়াজ কুঁচি হলদে হয়ে আসবে।
– এবার অন্য পাত্রে রান্না করা ভুড়িগুলো এই পাত্রে দিয়ে দিন।
– মিশিয়ে নিন।
– আগুনের আঁচ অল্প থাকবে।
– ভাঁজা চলুক। তবে সতর্কতা হচ্ছে, ভুড়ি এইভাবে ভাঁজতে গেলে ফুটে উঠে, তাই সর্তকতা জরুরী, নিরাপদ দূরে থাকুন।
– খেয়াল রাখবেন, যাতে তেল শেষ না হয়ে যায়। এই পর্যায়ে ফাইন্যাল লবনের স্বাদ দেখুন, লাগলে লবন ছিটিয়ে দিন।
– ভাঁজাটা কেমন হবে সেটা আপনি নিজেই নির্ধারন করুন, ইচ্ছা হলে পোড়া পোড়া করতে পারেন। রুটি ভাজির সাথে খেতে হলে, একটু বেশী ভাঁজতে হয়।

Spread the love