একসাথে হরেক রকমের কফি তৈরির রেসিপি

একসাথে হরেক রকমের কফি তৈরির রেসিপি

 আজকাল আশপাশেই পাওয়া যায় কফি’র দোকান। সাধারণ চায়ের দোকানেও এখন কফি তৈরি হয়ে থাকে। এসব কফি আবার বিক্রি হয় নানা নামে। কফি মেশিনের মাধ্যমেই বেশিরভাগ তারা এই কফি তৈরি করে থাকেন। চাইলে এসব কফি ঘরেও বানাতে পারেন। দেখে নিন একসঙ্গে ৮টি কফি তৈরির রেসিপি।

কোল্ড কফি

উপকরণ:

দুধ,

চিনি,

কফি পাওডার,

বরফ টুকরো,

আইসক্রিম।

প্রণালী:

দুধ টা ফুটিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন।

কফি টা একটি পরিষ্কার কাপড়ে মুড়ে হাল্কা গরম জলে ডোবান।

জলের পরিমাণ খুব বেশি দেবেন না। শুধু কফি টা গুলে নেওয়ার মত।

জলের মধ্যে কফির পুটুলিটা নেড়ে নেড়ে গুলে ঠাণ্ডা করে নিন।

কফি জলের রঙটা বেশ গাড় হবে।

এবার মিক্সার মেসিনের একটি বড় পাত্র নিন।

তাতে প্রথমে কফি গোলা জল তার পর দুধ দিন। এবার একে একে চিনি, টুকরো করা বরফ ও আইসক্রিম দিয়ে ঢাকা দিন, এবার মেসিন চালান।

বরফ গুলো ভাঙা শব্দ বন্ধ হলে বুঝবেন হয়ে গেছে।

এবার ঢাকা খুলে সুন্দর কাচের গ্লাসে ঢেলে পরিবেশন করুন।

নোট:

আপনি যদি মনে করেন আইসক্রিম ঘরে নেই তাহলে ভাববেন না যে কোল্ড কফি আপনার খাওয়া হবে না, কারন আইসক্রিম না দিয়েও কোল্ড কফি হবে। সেটা হল ঐ একই ভাবে আইসক্রিম না দিয়ে মিক্সারে ফাটিয়ে নিয়ে গ্লাসে ঢেলে ফ্রিজে ঢুকিয়ে দিন।

তবে কি বলুন তো আইসক্রিমটা দিলে খেতে ক্রিমি স্বাদ বাড়ে।

না দিলেও খারাপ লাগবে না। এক দিন বানিয়ে দেখুন। ভালো লাগলে আমাদের জানান।

উপর থেকে কফি পাওডার ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

সুতরাং আর দেরি কেন আপনিও খান এবং অন্য দের বানিয়ে খাওয়ান এই গরমে কোল্ড কফি

ক্যাফে মোকা

ক্যাফে মোকা বানাতে হলে আপনাকে ৩০ মিলিলিটার এসপ্রেসো, ১৫ গ্রাম চকলেটের গুঁড়া এবং ২০০ মিলিলিটার ঘন ফুটানো দুধ মেশাতে হবে। আপনি যদি চকলেটের স্বাদ প্রবলভাবে চান, তবে পরিমাণমতো চকলেটের গুঁড়া মিশিয়ে নিতে হবে।

ক্যাফে মোকাতেও ক্যাফে লাতের মতো ১ থেকে দেড় সেন্টিমিটার দুধের ফেনা থাকবে। যার ওপরে চকলেটের গুঁড়া দিয়ে মনমতো নকশা করে ফেলতে পারেন।

কাপুচিনো

উপকরণ:
তরল দুধ ১ কাপ (চা কাপের ১ কাপ)
গরম পানি ২ টেবিল-চামচ
কফি পাউডার আধা চা-চামচ


চিনি ২ চা-চামচ
কফি বিটার

প্রণালী:
প্রথমে দুধ গরম করে নিন। এবার একটি কাপে দুধ ঢেলে কফি বিটার দিয়ে ভালো মতো বিট করতে থাকুন। পাঁচ মিনিটের মাঝেই দুধ ফোমের মতো হয়ে যাবে।

এবার পরিবেশনের কাপে গরম পানি, কফি আর চিনি দিয়ে ভালো করে নেড়ে ফোম করা দুধ আস্তে আস্তে ঢালতে থাকুন। তাহলেই হয়ে যাবে ইতালীয় কফি-ড্রিংক কাপুচিনো। চইলে দুধ ঢালার সময় কফিতে বিভিন্ন নকশাও করতে পারবেন।

ব্ল্যাক কফি

গ্রাইন্ডার দিয়ে কফি গুঁড়া করে বাসায় একটি ‘কফি প্লানজার’ ব্যবহার করে ব্ল্যাক কফি তৈরি করতে পারবেন। কফি প্লানজার দিয়ে ৩ কাপ কফি বানাতে হলে লাগবে ৩৫০ মিলিলিটার ফুটানো পানি এবং ৫০ গ্রাম কফির গুঁড়া।

প্রথমে কফি প্লানজারের মধ্যে কফির গুঁড়া রেখে তাতে গরম পানি ঢেলে নাড়তে হবে। কফি প্লানজারে হাতলটা ওপরের দিকে টেনে ৪ থেকে ৫ মিনিট অপেক্ষা করে ধীরে ধীরে হাতলটা নিচের দিকে নামালেই তৈরি হয়ে যাবে ‘ব্ল্যাক কফি’।

ইতালিয়ান এসপ্রেসো

কফি শপের মতো যন্ত্র ছাড়া বাসায় এসপ্রেসো বানাতে হলে আপনার লাগবে একটি স্টোভ টপ যন্ত্র। প্রবল চাপের মাধ্যমে গরম পানি দিয়ে যখন কফি গুঁড়ার ভেতরের নির্যাস বের করে আনা হয়, সেটাকে বলা হয়ে ইতালিয়ান এসপ্রেসো।

স্টোভ টপ যন্ত্রের নিচের অংশে বা চেম্বারে পানি ভরে এর ওপরের ফিল্টারে কফির গুঁড়া ভরতে হবে। তার ওপরের কাপটি নিরাপদভাবে আটকে দিয়ে স্টোভ টপ যন্ত্রটিকে চুলার ওপরে রেখে দিতে হবে।

১ কাপ এসপ্রেসো শটের জন্য ৮ গ্রাম কফির গুঁড়ার নিচে ৮০ মিলিলিটার পানি দিয়ে স্টোভ টপটি চুলার ওপরে ৪ থেকে ৫ মিনিট রেখে দিতে হাবে। ওপরের অংশে কিছুক্ষণের মধ্যেই জমে যাবে কফি গুঁড়ার খাঁটি নির্যাস। যার নাম ইতালিয়ান এসপ্রেসো।

ঘরের কফি

সচরাচর বয়ামে থাকা কফি দিয়ে কিংবা ‘ইনস্ট্যান্ট কফি’ তৈরি করা হয় বাসায়। গরম পানির সঙ্গে কফির গুঁড়া ও দুধ মেশালেই কফি বানানো যায়। ‘ড্রিপ’ বা ‘ব্ল্যাক কফি’ তৈরির বেলায় লাগে একটি ফিল্টার।

এই ফিল্টারে কফির গুঁড়া রেখে গরম পানি মিশিয়ে ফিল্টার দিয়ে কফি পড়ার অপেক্ষা করতে হয়। বাইরে যেকোনো কফি শপে এসপ্রেসো যন্ত্র দিয়ে বানিয়ে দেবে ক্যাফে লাতে, ক্যাফে মোকা, কাপ্পুচিনোসহ নানা রকম কফি। যদিও বাসায় হুবহু কফি শপের মতো কফি তৈরি করা যায় না বললেই চলে, কিন্তু কাছাকাছি তো যাওয়া যাবে।

বাসায় সত্যিকারের কফির স্বাদ পেতে ‘ফ্রেশ গ্রাউন্ড কফি’ ব্যবহার করতে হবে। এর জন্য রোস্টেড কফি বিন গুঁড়া করতে হবে। কফি বিন গুঁড়া করার জন্য লাগবে ‘কফি বিন গ্রাইন্ডার’। হাতে গুঁড়া করার জন্য কেনা যেতে পারে ম্যানুয়াল গ্রাইন্ডার। এর ব্যবহারে কোনো বিদ্যুতের দরকার হয় না। কফি বিন গ্রাইন্ডারের মধ্যে রোস্টেড কফি বিন দিয়ে হাতল ঘোরালেই পেয়ে যাবেন কফি বিনের গুঁড়া।

কফি বিন গুঁড়া হয়ে গেলে আপনি নানাভাবেই বিভিন্ন রকমের কফি বানাতে পারবেন। ফ্রেশ গ্রাউন্ড কফি দিয়ে বাসায় কফি তৈরি করার কয়েকটি প্রক্রিয়া হলো: ফ্রেঞ্চ প্রেস/কফি প্লানজার, পেপার ফিল্টার, স্টোভ টপ, সাইফন, টার্কিশ কফি ইত্যাদি।

ক্যাফে লাতে

ক্যাফে লাতে তৈরি করতে আপনাকে এসপ্রেসো বানাতে হবে আগে। ৩০ মিলিলিটার এসপ্রেসোর সঙ্গে ২২০ মিলিলিটার দুধ মেশাতে হবে। ক্যাফে লাতের ওপরে ১ থেকে দেড় সেন্টিমিটার দুধের ফেনা (মিল্ক ফোম) থাকতে হবে।

কফি শপগুলোতে এই ফোম তৈরি করা হয় দুধের মধ্যে দিয়ে উচ্চ চাপের সঙ্গে বাষ্প প্রবাহিত করে। কিন্তু বাসায় ক্যাফে লাতে তৈরি করার সময় দুধের ফেনা বানানোর জন্য বাজার থেকে ক্যাফে লাতে ফোম তৈরির যন্ত্র কিনে নিতে হবে। ফোম ছাড়া এই কফি পান করলে মনে হবে যে কোনো সাধারণ দুধ কফি পান করছেন।

ক্যারামেল লাতে

ক্যাফে লাতের সঙ্গে ১৫ মিলিলিটার ক্যারামেল সিরাপ ব্যবহার করতে হবে। ক্যারামেল সিরাপ ১৫ মিলিলিটার থেকে পরিমাণমতো কম-বেশি ব্যবহার করে নিজের পছন্দমতো স্বাদ নিতে পারেন।

ক্যারামেল লাতের ওপরেও ১ থেকে দেড় সেন্টিমিটার ফেনা থাকবে। যার ওপরে আপনি ক্যারামেল সস দিয়ে মনমতো নকশা করে নিতে পারবেন।

Spread the love